রাতের পর ভোরের শুরু: দ্বিতীয় কিস্তি

(পূর্ব প্রকাশের পর)
ফজরের এই দুই রাকাত সুন্নত নামাযে, রাসুল (সাঃ) প্রথম রাকাতে সুরাহ্‌ কাফিরুন এবং দ্বিতীয় রাকাতে সুরাহ্‌ ইখলাস পাঠ করতেন। তবে কোন কোন সময় তিনি প্রথম রাকাতে সুরাহ বাক্বারার ১৩৬ নং আয়াত পাঠ করতেন।
قُولُوٓاْ ءَامَنَّا بِٱللَّهِ وَمَآ أُنزِلَ إِلَيۡنَا وَمَآ أُنزِلَ إِلَىٰٓ إِبۡرَٲهِـۧمَ وَإِسۡمَـٰعِيلَ وَإِسۡحَـٰقَ وَيَعۡقُوبَ وَٱلۡأَسۡبَاطِ وَمَآ أُوتِىَ مُوسَىٰ وَعِيسَىٰ وَمَآ أُوتِىَ ٱلنَّبِيُّونَ مِن رَّبِّهِمۡ لَا نُفَرِّقُ بَيۡنَ أَحَدٍ۬ مِّنۡهُمۡ وَنَحۡنُ لَهُ ۥ مُسۡلِمُونَ
অর্থঃ †Zvgiv ej, Avgiv Cgvb G‡bwQ Avjøvn&i Dci Ges hv AeZxY© n‡q‡Q Avgv‡`i cÖwZ Ges hv AeZxY© n‡q‡Q Beªvnxg, BmgvCj, BmnvK, BqvKze Ges Z`xq eska‡ii cÖwZ Ges g~mv, Cmv, Ab¨vb¨ bex‡K cvjbKZ©vi c¶ †_‡K hv `vb Kiv n‡q‡Q, Zrmgy`‡qi Dci| Avgiv Zv‡`i g‡a¨ cv_©K¨ Kwi bv| Avgiv ZvuiB AvbyMZ¨Kvix| (২-১৩৬)
এছাড়াও মাঝে মাঝে পাঠ করতেন,
قُلْ يَا أَهْلَ الْكِتَابِ تَعَالَوْاْ إِلَى كَلَمَةٍ سَوَاء بَيْنَنَا وَبَيْنَكُمْ أَلاَّ نَعْبُدَ إِلاَّ اللّهَ وَلاَ نُشْرِكَ بِهِ شَيْئًا وَلاَ يَتَّخِذَ بَعْضُنَا بَعْضاً أَرْبَابًا مِّن دُونِ اللّهِ فَإِن تَوَلَّوْاْ فَقُولُواْ اشْهَدُواْ بِأَنَّا مُسْلِمُونَ
অর্থঃ “ejyb: ‡n Avn&‡j-wKZveMY! GKwU wel‡qi w`‡K Avm-hv Avgv‡`i g‡a¨ I †Zvgv‡`i g‡a¨ mgvb-‡h, Avgiv Avjøvn& Qvov Ab¨ KviI Bev`Z Kie bv, Zuvi mv‡_ †Kvb kixK mve¨¯Í Kie bv Ges GKgvÎ Avjøvn&‡K Qvov KvD‡K cvjbKZ©v evbve bv| Zvici hw` Zviv ¯¦xKvi bv K‡i, Zvn‡j e‡j `vI †h, mv¶x _vK Avgiv †Zv AbyMZ|(৩-৬৪)
অথবা পাঠ করতেন,
فَلَمَّا أَحَسَّ عِيسَى مِنْهُمُ الْكُفْرَ قَالَ مَنْ أَنصَارِي إِلَى اللّهِ قَالَ الْحَوَارِيُّونَ نَحْنُ أَنصَارُ اللّهِ آمَنَّا بِاللّهِ وَاشْهَدْ بِأَنَّا مُسْلِمُونَ
رَبَّنَا آمَنَّا بِمَا أَنزَلَتْ وَاتَّبَعْنَا الرَّسُولَ فَاكْتُبْنَا مَعَ الشَّاهِدِينَ
অর্থঃ AZ:ci Cmv (Av:) hLb eYx Bmivqx‡ji Kzdix m¤c‡K© Dcjwä Ki‡Z cvi‡jb, ZLb ej‡jb, Kviv Av‡Q Avjøvn&i c‡_ Avgv‡K mvnvh¨ Ki‡e? m½x-mv_xiv ej‡jv, Avgiv i‡qwQ Avjøvn&i c‡_ mvnvh¨Kvix| Avgiv Avjøvn&i cÖwZ Cgvb G‡bwQ| Avi Zzwg mv¶x _vK †h, Avgiv nyKzg Keyj K‡i wb‡qwQ|†n Avgv‡`i cvjbKZ©v! Avgiv †m wel‡qi cÖwZ wek¦vm ¯’vcb K‡iwQ hv Zzwg bvwhj K‡iQ, Avgiv im~‡ji AbyMZ n‡qwQ| AZGe, Avgvw`M‡K gvb¨Kvix‡`i ZvwjKvfy³ K‡i bvI|” (৩-৫২,৫৩)
রাসুল (সাঃ) কখনই ফজরের এই দুই রাকাত সুন্নত নামায ছাড়েননি। সবসময় অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে আদায় করেছেন। তিনি বলতেন, “এই দুই রাকাত আমার কাছে এই দুনিয়া এবং দুনিয়ার মাঝে যা কিছু আছে তা থেকে মূল্যবান।”
নামায আদায় শেষে যদি দেখতেন তাঁর স্ত্রী (উম্মুল মু’মিনীন)জেগে গেছেন, তাহলে তাঁর সাথে তিনি কথা বলতেন। এবং সে কথা হতো স্নেহব্যঞ্জক এবং মমতা মাখা। সেই স্ত্রী কতইনা সুখী যার সকাল বা ভোর শুরু হয় তাঁর স্বামীর ভালোবাসা মাখা কথা শুনে। রাসুল (সাঃ) শুধু শ্রেষ্ঠ মানুষই নয়, তিনি ছিলেন স্বামী হিসেবে সর্বশ্রেষ্ঠ মডেল।

আর ফজরের সুন্নত নামাযের পর যদি রাসুল (সাঃ) তাঁর স্ত্রীকে ঘুমিয়ে থাকতে দেখতেন, তাহলে তিনিও ডান কাতে শুয়ে কিছুক্ষন বিশ্রাম নিতেন। ফজরের দুই রাকাত ফরয নামায শুরু হবার আগ পর্যন্ত তিনি এভাবে বিশ্রাম নিতেন।                         (চলবে)

Leave a Reply