বালক এবং একটি তারা মাছ

সমুদ্রটাকে আজ বেশ শান্ত দেখাচ্ছে। অথচ কাল রাতে এই সমুদ্রই ছিল ভয়াবহ রকমের অশান্ত। কারণ গতকাল ঝড় হয়েছিল এখানে। সমুদ্রের তীর ধরে শুধু সাদা আর সাদা তাঁরা মাছে ভরে গেছে। একটি খোঁড়া ছেলে, খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটছে আর তীরে পড়ে থাকা তাঁরা মাছ গুলো কুড়িয়ে সমুদ্রে ছুড়ে ফেলছে।
ব্যাপারটা আরেকজন বয়স্ক সাধু দূর থেকে লক্ষ্য করলেন। তার কাছে কাজটা অযৌক্তিক মনে হলে। কারণ এই লম্বা সমুদ্র তীরে কোটি কোটি তাঁরা মাছ আছে। ছেলেটা কয়টা মাছ বাঁচাবে এভাবে। 
“বালক, তুমি তোমার শক্তি এবং সময় উভয়ই নষ্ট করছ।” সাধু বলল, “তুমি কয়টা মাছ বাঁচাবে? এভাবে অল্প কিছু মাছ বাচিয়ে কি লাভ?”
ছেলেটি তার হাতে ধরা তাঁরা মাছটি দেখিয়ে বলল, “জনাব, আপনার আমার জন্য হয়তো এটা কিছুই না। কিন্তু এই মাছের জন্য তার জীবন!”
বয়স্ক সাধু অবজ্ঞাভরে কাঁধ দুটি একটু ঝাঁকাল। এরপর চলে গেল। গ্রীষ্মের ঝলমলে প্রভাত। চারিদিক ঝকঝকে আলো আর সবুজের সমারোহ। সাধু ব্যক্তিটি হাঁটছে আর তার মনের দেয়ালে বার বার কিছু বাক্য প্রতিধ্বনিত হচ্ছে, “আমার জন্য কিছুই না। কিন্তু তাঁরা মাছের জন্য তার জীবন, তার জীবন!”
বেশ কিছুক্ষণ পর সমুদ্রের সৈকতে একজন বয়স্ক ব্যক্তি এবং একটি বালককে তীর থেকে জ্যান্ত তাঁরা মাছ সমুদ্রে ছুঁড়ে ফেলতে দেখা যায়।

Leave a Reply